Home / মিডিয়া নিউজ / অভিনেত্রী সিমলার নতুন মিশন

অভিনেত্রী সিমলার নতুন মিশন

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী সিমলা। গত বছরের শেষদিকে তার মা অসুস্থ থাকার কারণে

বেশকিছু কাজের প্রস্তাব পাওয়ার পরেও ফিরিয়ে দিয়েছেন। মাকে নিয়ে কলকাতায় গিয়েছিলেন তিনি।

কয়েকদিন আগে দেশে ফিরেছেন। নতুন বছরে তার অভিনীত দুটি ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। ছবি দুটি হচ্ছে রুবেল আনুশের ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ ও রাশিদ পলাশের ‘নাইওর’। ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ ছবিটি নিয়ে গত বছর বেশ কিছু বিতর্কে জড়িয়েছিলেন সিমলা। বিশেষ করে শুটিং সেটে দেরি করে আসা, ছবির ডাবিং না করাসহ এ ছবির পরিচালক রুবেল আনুশ সিমলার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করেন। তবে সিমলা এ বিষয়ে পরিষ্কার করে মানবজমিনকে বলেন, আমি প্রথম থেকেই ছবিটি নিয়ে মানসিকভাবে খুবই বিরক্ত। বিশেষ করে পরিচালক ও প্রযোজকের কথা ঠিক না থাকার কারণে এসব সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। আনুশের মধ্যে পরিচালক হওয়ার কোনো যোগ্যতা নেই। ছবিতে কাজ করতে রাজি হয়েছিলাম, এটা আমার সবচেয়ে বড় ভুল। শুটিংয়ের আগে পরিচালক স্ক্রিপ্ট আমার হাতে দেয়ার কথা ছিল। শেষ পর্যন্ত এ ছবির স্ক্রিপ্ট হাতে না পাওয়ার কারণে আমি ডাবিংও করিনি। স্ক্রিপ্ট ছাড়া ডাবিং হয় নাকি! তারপরও আমি ছবির কাজটা শেষ করে দিয়েছি। তবে আবারও বলছি এ ছবিটি আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় ভুল। এ ছবির জন্য কালো দাগ লেগেছে আমার ক্যারিয়ারে। এদিকে সিমলার ‘নাইওর’ ছবিটির অল্প কাজ এখনও বাকি। আর একদিন কাজ করলেই সিমলার এ ছবির কাজ শেষ হবে। ছবিটি নিয়ে সিমলা বলেন, এতে কাজ করে বেশ ভালো লেগেছে। সামনে এ ছবির আর একদিন শুটিং করব। তাহলেই সব কাজ শেষ হবে। এ ছবিতে একজন যাত্রাপালার মেয়ের চরিত্রে কাজ করেছি। চরিত্রটি দর্শকরা পছন্দ করবে বলে আশা করছি। এ ছবিতে আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন আনিসুর রহমান মিলন। ‘ম্যাডাম ফুলি’ খ্যাত এই অভিনেত্রী নিজের জীবনের প্রথম চলচ্চিত্রেই অর্জন করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। সেটাও ১৯৯৯ সালের কথা। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেন প্রয়াত গুণী নির্মাতা শহীদুল ইসলাম খোকন। এরপর আরও বেশকিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। তবে সেগুলোর মধ্যে কিছু জনপ্রিয়তা লাভ করলেও ‘ম্যাডাম ফুলি’র মতো আকাশছোঁয়া সাফল্য পায়নি। অবশ্য নতুন বছরে ‘ম্যাডাম ফুলি’ ছবির সিক্যুয়ালে কাজ করবেন তিনি। বর্তমানে এ ছবির স্ক্রিপ্টের কাজ চলছে। এ প্রসঙ্গে সিমলা বলেন, ছবিটির চিত্রনাট্য করছেন আশিকুর রহমান। তিনি প্রথমে যে চিত্রনাট্য করেছিলেন সেখানে অনেক পরিবর্তনের প্রয়োজন আছে। তাই নতুন করে এই চিত্রনাট্য করতে বলেছি। কারণ ‘ম্যাডাম ফুলি’ ছবিটি ছিল আমার সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সম্মানের ছবি। তাই এর সিক্যুয়ালটাও আমার জন্য একটা ড্রিম প্রজেক্ট। গুছিয়ে কাজটি করার ইচ্ছে রয়েছে। এ ছবিটি নির্মাণ করবেন আশিকুর রহমান। নতুন বছরে ভালো বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজেরও প্রস্তাব পেয়েছেন সিমলা। তবে বুঝে শুনে সেগুলোতে কাজ করতে চান তিনি। সিমলা সবশেষে বলেন, এ বছরটা আমার জন্য একটা নতুন মিশন। ভালো ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করার ইচ্ছে রয়েছে। বেশ কয়েকজন নির্মাতার সঙ্গেও কথা হচ্ছে। চলচ্চিত্রের বর্তমান অবস্থা খুব ভালো নেই। তাই ইন্ডাস্ট্রির যে কোনো কাজ করতে ভয় লাগে। আগের মতো সফল প্রযোজক ও পরিচালকের সংখ্যাও কম। পেশাদার প্রযোজক, পরিচালকের সঙ্গে সঙ্গে সিনেমা হলগুলোও কমে যাচ্ছে। তাই শিল্পী হিসেবে আমার ভয়টা বেশি কাজ করছে। এ অবস্থা থেকে কাটিয়ে ওঠতে হবে আমাদের। চলচ্চিত্রের সুদিন ফেরানোর জন্য শিল্পী হিসেবে আমাদেরও সমান দায়িত্ব রয়েছে।

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *