Home / মিডিয়া নিউজ / ১৫ বছর পর শাকিবের ছবিতে আজিজ রেজার কোরিওগ্রাফি

১৫ বছর পর শাকিবের ছবিতে আজিজ রেজার কোরিওগ্রাফি

নৃত্য পরিচালক আজিজ রেজার হাত ধরেই চলচ্চিত্রে এসেছিলেন আজকের ঢালিউড কিং শাকিব খান।

প্রথমদিকে এফডিসির বিভিন্ন পরিচালকদের কাছে আজিজ রেজা নিয়ে যেতেন শাকিবকে।

পরিচালকদের বলতেন, ওকে কাজের সুযোগ দেন, ও পারবে! ঢাকাই চলচ্চিত্রে শাকিবের শুরুটা এভাবেই।

এরপর শাকিব খান টুকটাক যখন সিনেমায় কাজ করতেন তখন আজিজ রেজা কোরিওগ্রাফি করতেন।

শাকিবের প্রায় ১২ থেকে ১৩ টি সিনেমায় গানের কোরিওগ্রাফি করেছেন আজিজ রেজা। সর্বশেষে ২০০৩ সালে তারা একসঙ্গে কাজ করেছেন। তবে আশার কথা হচ্ছে, ১৫ বছর পর শাকিবের ছবির গানে কোরিওগ্রাফি করলেন আজিজ রেজা।

উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়্যা’ ছবির একটি আইটেম গানের কোরিওগ্রাফি করেছেন তিনি। রোববার বিকালে এমন খবর জানিয়েছেন আজিজ রেজা নিজেই।

আজিজ রেজা বলেন, শাকিবের সঙ্গে ১২ থেকে ১৩ টি ছবিতে কাজ করেছি। তবে এবার ১৫ বছর আবার কাজ করলেও এই আইটেম গানে সে নেই। এই আইটেম গানে আমার কোরিওগ্রাফিতে নেচেছেন তানহা মৌমাছি। সাত লাখ টাকা বাজেট ছিল এই গানের জন্য। নাচ, গান সবকিছুই ভরপুর পাওয়া যাবে এই গানে।

আজিজ রেজা আরো বলেন, এই ছবিতে আছেন মৌসুমি। তিনি আমাকে দিয়ে গানটি তৈরি করার জন্য প্রযোজক সেলিম ভাইকে বলেন। সেলিম ভাই আমাকে সুযোগ দেন। তাছাড়া পরিচালক উত্তম আকাশ আমার বন্ধু। গানে পারফর্ম করেছে মৌমাছি। সে খুব ভালো নেচেছেন, কাজের প্রতি তার আগ্রহ রয়েছে। আমি গানটির কোরিওগ্রাফি করেছি এটা শাকিব জানে কিনা আমি জানিনা। যতদূর জানি সে এখন বিদেশে বেশি থাকে।

আজিজ রেজা আরো বলেন, শাকিব এখন দেশসেরা নায়ক। আমাকে সে আগের মতো রেসপেক্ট করে। ওর সাথে আমার কোনো ঝামেলা হয়নি, আমাকে কোনো অস্মমান করেনি।

কিছু লোক আমার কাছে এসে ওর নামে আবোলতাবোল বলতো, আবার ওর কাছে গিয়ে আমাকে নিয়ে আবোলতাবোল বলতো। অনেকেই মনে করে আমাদের মধ্যে মনোমানিল্য রয়েছে, কিন্তু না। ও আমাকে বাবার মতো সম্মান করে। নায়ক হলে অনেক কিছুই করতে হয়, অনেক জায়গায় যেতে হয়, সেজন্য সবসময় দেখা সাক্ষাৎ হয়না। চ্যানেল আই

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *