Home / মিডিয়া নিউজ / সে এ কথা বলে সাহস দেখিয়েছে : দীঘির বাবা

সে এ কথা বলে সাহস দেখিয়েছে : দীঘির বাবা

শিশু শিল্পি হিসেবে বাংলা সিনেমায় এসে রিতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছিল এর পর আর পিছনে ফিরে

তাকাতে হয়নি তাকে একের পর এক সিনেমায় অভিনয় করে দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছিল

এবং দর্শক তার সাবলীল অভিনয় দেখে তার ব্যপক প্রসংসা করেছিল তবে হঠাৎ করেই সে আড়ালে চলে গিয়েছিল।

শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী প্রার্থনা ফারদিন দীঘির নায়িকা হিসেবে অভিষেকটা সুখকর হলো না।

চিত্রনায়িকা প্রার্থনা ফারদিন দীঘি এবং তার বাবা ও মামার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেছেন চিত্রপরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে বুধবার ঢাকা জজ কোর্টে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলা প্রসঙ্গে দীঘির বাবা অভিনেতা সুব্রত চক্রবর্তী বলেন, মামলার বিষয়ে আমি এখনো কিছু জানি না। আমার কাছে কোনো কাগজপত্র আসেনি।

তবে কয়েকদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে শুনছি তিনি (ঝন্টু) মামলা করবেন। এরপর আমরা তার সঙ্গে এবং সিনেমার প্রযোজকের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু তারা ফোন রিসিভ করেননি। এটি সিনেমার প্রচারের কৌশল হতে পারে উল্লেখ করে দীঘির বাবা আরো বলেন, তার মতো (ঝন্টু) একজন লোক কেন এ ধরনের কথা বলবেন সেটাই আমি বুঝি না! মামলা করার মতো এখানে কি ঘটল? একটা মেয়ে যদি বলে- তার কাজটি ভালো হয়নি। আমি তো মনে করি, সে এ কথা বলে সাহস দেখিয়েছে। ও (দীঘি) ফিল করেছে, ওর কাজটি আরো ভালো হতে পারতো।

অভিনেতা সুব্রত জানান, এখনো কিছুই হাতে পাইনি। জানান, মামলার কাগজপত্র হাতে পেলেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন তারা।

তিনি মনে করেন, সিনেমাটি নিয়ে প্রচারের কৌশল হিসেবেই এগুলো করছেন দেলোয়ার জাহান ঝন্টু এবং ’তুমি আছো ‍তুমি নেই’ সিনেমার প্রযোজক সিমি ইসলাম কলি।

এর আগে মামলা দায়েরের পর দেলোয়ার জাহান ঝন্টু সাংবাদিকদের বলেন, দীঘি, তার বাবা ও মামার বিরুদ্ধে এক কোটি টাকা আদায়ের জন্য মানহানির মামলা করেছি।

আমার সম্মান তার (দীঘি) থেকে অনেক বেশি। পৃথিবীতে সিনেমার গল্প সবচেয়ে বেশি আমি লিখেছি। এশিয়া মহাদেশে সবচেয়ে বেশি চলচ্চিত্র আমি বানিয়েছি। আমার তো ১০ কোটি টাকাও কম হয়ে যায় বলে মনে করি। পরিচালক ও প্রযোজকদের জন্য দীঘি হুমকিস্বরূপ’ মন্তব্য করে এই নির্মাতা বলেন, ’সিনেমার নায়িকাই যখন বলেছে- সিনেমা চলবে না, তাহলে মানুষ কেন হলে যাবে? এত বড় সাহস! মুক্তির আগে চলবে না বললে তো সে (দীঘি) পরিচালক এবং প্রযোজকদের জন্য হুমকি। এটা কালচার হয়ে যাবে। অন্য নায়ক-নায়িকারাও বলবে।

তুমি আছো তুমি নেই’ নামে সিনেমাটিতে জুটি বেঁধে অভিনয় করেন আসিফ ইমরোজ ও প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। সিনেমাটি আগামী ১২ মার্চ সারা দেশে মুক্তি পাবে।

মুক্তিকে সামনে রেখে প্রকাশিত হয় পোস্টার, ট্রেইলার। এ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন নির্মাতা ও দীঘি। দর্শকদের সমালোচনার সাথে তাল মেলান নায়িকা দীঘিও। তারপরই মূলত এই পরিচালকের সাথে তার দ্বন্দ্ব তৈরি হয়। দীঘি শিশুশিল্পী হিসেবে ঢাকাই সিনেমায় অভিনয় করে দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন।

কাজী হায়াৎ পরিচালিত ’কাবুলীওয়ালা’ সিনেমায় অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। এরপর শিশুশিল্পী হিসেবে মোট ৩০টি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি।

মাঝে দীর্ঘ বিরতি নিয়ে নায়িকা হিসেবে ’টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ ও ’তুমি আছো তুমি নেই’ সিনেমায় অভিনয় করেন। সিনেমা দুটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক এবং ’শেষ চিঠি’ নামে একটি ওয়েব ফিল্মে কাজ করছেন দীঘি।

বাংলাদেশের চলচিত্রে শিশু শিল্পি হিসাবে এসেছিল প্রথনা ফারদিন দিঘি এর পর তার একের পর এক সিনেমায় অভিনয় দেখে দর্শক রিতিমত তার অভিনয়ের ভক্ত হয়েগিয়েছিল এবং একের পর এক সিনেমা্য় তার অনবদ্য অভিনের সূবাদে তাকে নিয়ে শুরু হয়েছিল নউন আলোচনা

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *