Home / মিডিয়া নিউজ / এখনকার নায়ক-নায়িকারা দেখলে এমন আচরণ করে মনে হয় তারা সুপারস্টার আর আমরা মিসকিন : অঞ্জনা

এখনকার নায়ক-নায়িকারা দেখলে এমন আচরণ করে মনে হয় তারা সুপারস্টার আর আমরা মিসকিন : অঞ্জনা

দীর্ঘদিন ধরে চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন না একসময়ের সাড়াজাগানো নায়িকা ও নৃত্যশিল্পী অঞ্জনা।

এ জন্য চলচ্চিত্র নির্মাণ সংকটকে দায়ী করেছেন তিনি। মানহীন চলচ্চিত্র ও শিল্পী সংকটে দর্শক

হারাচ্ছে বলে মনে করেন তিনি। শামসুদ্দীন টগর পরিচালিত ’দস্যু বনহুর’ সিনেমার মধ্য দিয়ে অঞ্জনার

ঢালিউডে অভিষেক ১৯৭৮ সালে। ২৬২ সিনেমায় অভিনয় করা অঞ্জনা আশির দশকে ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের একজন। সাবলীল অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ জাতীয় পুরস্কারও জিতেছেন তিনবার। সম্প্রতি চলচ্চিত্রের নানা বিষয় নিয়ে সঙ্গে কথা বলেছেন অঞ্জনা। কেমন আছেন?
অঞ্জনা : কেমন করে ভালো থাকব? আমাদের চলচ্চিত্র দিন দিন নিচের দিকে নেমে যাচ্ছে। আমার পরিচয় চলচ্চিত্র শিল্পী। চলচ্চিত্র ভালো না থাকলে আমরা কীভাবে ভালো থাকি?
: অনেক দিন ধরে আপনাকে নতুন চলচ্চিত্রে দেখা যাচ্ছে না কেন?
অঞ্জনা : চলচ্চিত্র তো এখন হচ্ছে না। আর যা হচ্ছে সেগুলোকে চলচ্চিত্র বলা উচিত হবে কি না, আমার দ্বিধা আছে। মাঝেমধ্যে কিছু কাজের প্রস্তাব আসে, সেগুলোর নাম ও গল্প শোনার পর আর অভিনয় করতে ইচ্ছে করে না।
: আপনি বলছেন ভালো চলচ্চিত্র হচ্ছে না, এর কারণ কী?
অঞ্জনা : আমার কাছে মনে হয়, মানহীন চলচ্চিত্র আমাদের দর্শক নষ্ট করেছে। ছবির গল্প ঠিক থাকে না, তাই যা ইচ্ছে নির্মাণ করছেন অনেকেই। আর শিল্পী সংকট অনেক বড় একটি বিষয় বলেও আমি মনে করি। গত ১০ বছরে আপনি কয়জন শিল্পীর নাম বলতে পারবেন, যাঁদের নাম আগামী ২০ বছর দর্শক মনে রাখবে? তার মানে শিল্পীরা দর্শক হৃদয়ে দাগ কাটতে পারছে না। মূল কথা হচ্ছে, অভিনয়গুণ নেই। এ কারণে ভালো চলচ্চিত্র হচ্ছে না।
: নতুন শিল্পী তৈরি হতে আপনারা কেন সাহায্য করছেন না?
অঞ্জনা : আমরা কীভাবে সাহায্য করব? এখনকার নায়ক-নায়িকারা আমাদের চিনতে চায় না। দেখা হলে এমন আচরণ করে যেন তারা সুপারস্টার আর আমরা মিসকিন। গত শুক্রবার কয়েকজন শিল্পীর সঙ্গে দেখা হয়েছিল, তাদের নাম বলতে চাই না। তবে তাদের আচরণ দেখে মনে কষ্ট পেয়েছি। আমরা সারা জীবন কাজ করে নিজেকে শিল্পী হিসেবে পরিচয় দিয়েছি। এখন তো তারা তারকা হওয়ার জন্য অভিনয় করে। কিছু শেখাতে গেলে আবার কোন ধরনের আচরণ করে, এটা চিন্তা করেই ভয় পাই।
: সংকট থেকে উঠে আসার পথ কী?
অঞ্জনা : ভালো চলচ্চিত্র নির্মাণ করাই হবে সংকট থেকে উঠে আসার একমাত্র পথ। প্রথমে প্রয়োজন ভালো একটি গল্প। তারপর প্রয়োজন গল্পের চরিত্রগুলো ফুটিয়ে তোলার জন্য চরিত্র অনুযায়ী শিল্পী। এরপর সময় উপযোগী নির্মাণ। আমার মনে হয়, এই তিনটি বিষয় মেনে চলচ্চিত্র নির্মাণ করলে আমাদের সংকট একসময় থাকবে না।

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *