Home / মিডিয়া নিউজ / দুই বছর পর দেশে ফিরেছেন ‘কেশবপুরের পুত্রবধূ’ নায়িকা শাবানা

দুই বছর পর দেশে ফিরেছেন ‘কেশবপুরের পুত্রবধূ’ নায়িকা শাবানা

বাংলা চলচ্চিত্রের এক সময়ের পর্দা কাঁপানো চিত্রনায়িকা শাবানা দেশে ফিরেছেন।

গেল দুইদশক ধরে প্রবাসী জীবনযাপন করছেন তিনি। মাঝে মাঝে সুযোগ পেলেই দেশে আসেন।

স্বামী-সন্তান-সংসার নিয়ে মার্কিন মুলুকের নিউ জার্সি শহরে স্থায়ী হয়েছেন একসময়কার পর্দা কাঁপানো অভিনেত্রী শাবানা।

বছর দুয়েক পরপর তিনি চেষ্টা করেন জন্মভূমিতে ফিরে সময় কাটানোর। সেই ধারাবাহিতায় গেল ২৭ ডিসেম্বর কিংবদন্তি এই চলচ্চিত্র অভিনেত্রী তার স্বামী চিত্রপ্রযোজক ওয়াহিদ সাদিককে নিয়ে দেশে ফিরেছেন।

জানা যায়, পারিবারিক কিছু কাজে শাবানা এবার দেশে এসেছেন। এর আগে ২০১৭ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশে এসেছিলেন শাবানা।

ঢাকাই সিনেমার সোনালি ইতিহাসের সাক্ষী চিত্রনায়িকা শাবানা। তিন দশকের ক্যারিয়ারে অভিনয় করেছেন অসংখ্য চলচ্চিত্রে। তবে সেই ক্যারিয়ারের সমাপ্তি ঘটান ১৯৯৯ সালে। এরপর আর তাকে পর্দায় দেখা যায় নি। সন্তানদের উন্নত ভবিষ্যৎ ও উচ্চশিক্ষা নিশ্চিত করতে ওই বছরই স্বামী চিত্রপ্রযোজক ওয়াহিদ সাদিককে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান তিনি। শাবানার বড় মেয়ে ফারহানা সাদিক সুমি এমবিএ, সিপিএ পাস করে আগে চাকরি করতেন। পরে তার দুই বাচ্চাকে দেখাশোনার জন্য তিনি চাকরি ছাড়েন।

ছোট মেয়ে সাবরিনা সাদিক বিশ্বখ্যাত ইয়েল ও হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়ে বর্তমানে শিকাগোর হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষকতা করছেন। একমাত্র ছেলে শাহীন সাদিক নিউজার্সির রাদগার্স ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএ সম্পন্ন করে এখন সেখানকার স্বনামধন্য ব্লুমবার্ড কোম্পানিতে কর্মরত।

ষাট থেকে নব্বইয়ের দশকে বড়পর্দা মাতানো ঢালিউডের বিউটি কুইনখ্যাত জীবন্ত কিংবদন্তি অভিনেত্রী শাবানা এখনো তেমনই সৌন্দর্যের অধিকারী। বয়স তাকে একটুও ছুঁতে পারেনি।

শাবানার প্রশ্ন- আমাকে এখনো মানুষ এতো ভালোবাসে কেন? বলতে বলতেই ফুপিয়ে কান্না তার। কোনোভাবে কান্না সং’য’ত করে তিনি বললেন, ‘জানেন প্রতিদিন ভোরে মর্নিংওয়াকে বের হই। সেদিন আমি পার্কে হাঁটছি, একটা মেয়ে এসে আমাকে বলল, যদি কিছু মনে না করেন তাহলে একটা কথা বলি। আমি বললাম বলো।

মেয়েটি বলল, আপনি আমাদের শাবানা আপা না? আমি হেসে উঠলাম। আমার হাসি দেখে তার উচ্ছ্বাসের মাত্রা আরও বেড়ে গেল। খুশিতে আত্মহারা হয়ে বলে উঠল- হ্যাঁ, ঠিকই তো, আপনি আমাদের শাবানা আপা। ওই যে আপনার সেই ভুবন ভোলানো হাসি, বলতে বলতে সে আমাকে জড়িয়ে ধরল। আমি অবাক চোখে তার দিকে তাকিয়ে রইলাম। মুখে কোনো কথা নেই।

নিজেকে প্রশ্ন করলাম- এতটুকু মেয়ের পক্ষে তো আমাকে চেনার কথা নয়, হয়তো তার মা-বাবা আমাকে চিনতে পারেন। কারণ তাদের সময়ে আমার ছবি মুক্তি পেত। ও বলল, আমি এখনো টিভি, ইউটিউবে আপনার ছবি দেখি। আপনাকে আমার অনেক ভালো লাগে। এ ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে আবারও ডু’করে কেঁদে উঠলেন ঢালিউডের এ বিউটি কুইন।

আবারও তার কান্নাভেজা প্রশ্ন, আমাকে এখনো মানুষ এতো ভালোবাসে কেন। কারও জন্য তো কখনো কিছু করতে পারিনি। তার কথায় শুধু দেশে নয়, বিদেশের মাটিতেও এমন ঘটনা নিয়মিত ঘটে। বলতে বলতে চোখ মুছে নিলেন তিনি। তার কান্নায় আমাদের চোখও ভিজে উঠল।

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *