Home / মিডিয়া নিউজ / দেশের জনপ্রিয় তারকাদের নিয়ে ভারতীয় মিডিয়ার মিথ্যাচার!

দেশের জনপ্রিয় তারকাদের নিয়ে ভারতীয় মিডিয়ার মিথ্যাচার!

‘বাংলার যেসব মডেল, সেলেব আর অভিনেত্রীর রোজগার শরীর বেচে’! এটি একটি সংবাদের

শিরোনাম! বাংলাদেশের তারকাদের ছোট করে কাণ্ডজ্ঞানহীন এই সংবাদটি ছেপেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের গণমাধ্যম ‘এই সময় ডটকম’।

কট্টর হিন্দুত্ববাদে বিশ্বাসী এই পত্রিকাটি প্রায় সময়ই গুজব-গুঞ্জনের সংবাদ ছেপে সমালোচনার শিকার হয়। এটাকেই তারা নিজেদের পাঠকপ্রিয়তার যোগ্যতা করে নিয়েছে। অপেশাদারিত্বের চরম নমুনা বহুবার প্রকাশ করেছে ‘এই সময়’। যার কারণে পত্রিকাটি নিজের দেশের পাঠকদের কাছেই নিন্দিত।

তবে লক্ষ্য করা গেছে, বাংলাদেশ নিয়ে ‘এই সময়’র বিশেষ বাজে মনোভাব রয়েছে। এর আগে নানা ইস্যুতে বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে মনগড়া তথ্যে সংবাদ প্রকাশ করে এ দেশের ক্রিকেটকে হেয় করার অপচেষ্টা চালিয়েছে। উসকানি দিয়েছে উগ্রবাদের।

এবার তারা ছোট করার জন্য বেছে নিল বাংলাদেশের শোবিজের স্বনামধন্য একঝাঁক তারকাকে। প্রভা, নোভা, ইভা রহমান, চৈতী, বিন্দু, তিন্নি, মিম, শখ, সারিকা, মিলা, মেহজাবীনের মতো প্রতিষ্ঠিত তারকাদের দেহ ব্যবসায়ী স্বীকৃতি শিরোনাম করে সংবাদ প্রকাশ করেছে। এই সংবাদের প্রতিবাদে নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশের শোবিজ সংশ্লিষ্টরা।

পত্রিকাটি উল্লিখিত তারকাদের নাম দিয়ে তাদের অনলাইন ভার্সনে লিখেছে, এরা বিভিন্ন সময় সেক্স স্ক্যান্ডালে জড়িয়েছেন। যদিও তার কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি। বিভিন্ন সময় অনলাইনে ছড়ানো নানা গুজব-গুঞ্জনকে সূত্র করেই শিরোনামে তারকাদের ‘দেহ ব্যবসায়ী’ বলে দাবি করা হয়েছে।

সংবাদে আরও দাবি করা হয়েছে, সেক্স স্ক্যান্ডালের শিকার হয়ে এসব তারকার অনেকেই ক্যারিয়ার থেকে ছিটকে পড়েছেন। যার আদৌ কোনো ভিত্তি নেই। লাক্স তারকা বিন্দু, অভিনেত্রী তিন্নি, মডেল চৈতি ব্যতীত সবাই এখনো সগৌরবে শোবিজে কাজ করে যাচ্ছেন।

এদিকে দাম্পত্যের নেতিবাচক আক্রমণের শিকার হওয়া প্রভার একটি স্ক্যান্ডাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হলেও দেশবাসীর সহানুভূতি পেয়েছিলেন তিনি। কারণ স্বেচ্ছায় স্বামী-স্ত্রীর ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ভিডিও কোনো অপরাধ নয়। আক্রোশের শিকার হয়ে প্রভার সাবেক স্বামী রাজিব সেই ভিডিও নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে দিলে তাকেই দোষী হিসেবে কাঠগড়ায় তোলে সমাজ। সেই ভিডিওর প্রভাবে সমায়িকভাবে হতাশায় থাকলেও খুব দ্রুতই তিনি নিজেকে ফিরিয়ে আনেন শোবিজে এবং তুমুল ব্যস্ত হয়ে উঠেন।

এদিকে এই সংবাদে নাম আছে এমন দুই-তিনজন তারকার সঙ্গে এ ব্যাপারে মন্তব্য জানতে চাইলে তারা বিরক্তি প্রকাশ করেন। তারা এই সংবাদকে ‘বিদেশি পত্রিকার উদ্দেশ্যমূলক সংবাদ’ বলে মন্তব্য করেছেন। সেইসঙ্গে একটা দেশের জনপ্রিয় তারকাদের নিয়ে এমন ‘নোংরা’ শিরোনামে সংবাদ লিখে অপেশাদার সাংবাদিকতার জন্য ‘এই সময়’ পত্রিকার প্রতি ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

এদিকে অনেকেই আশঙ্কা করছেন, বাংলাদেশেরই কোনো সাংবাদিক এই সংবাদটি লিখেছেন ‘এই সময়’র বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসেবে। কলকাতার বেশকিছু গণমাধ্যমের সঙ্গেই বাংলাদেশের অনেক সাংবাদিক লেখালেখি করে থাকেন।

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *