Home / মিডিয়া নিউজ / ‘আমাকে উনি আদর করে বেয়াদব বলে ডাকেন’

‘আমাকে উনি আদর করে বেয়াদব বলে ডাকেন’

বাংলা সিনেমা দেখেন বা না দেখেন, ডিপজলের নাম শোনেননি এমন লোক পাওয়া দুস্কর। সম্প্রতি

তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করেছেন। সেখানে তাকে রিং পরানো হয়েছিল।

তবে জানা গেছে তিনি বর্তমানে আগের তুলনায় সুস্থ আছেন। ডিপজলের সুস্থতা কামনা করে চিত্রনায়িকা

রত্না ডিপজলকে নিয়ে ফেসবুকে বেশ বড় একটি লেখা লিখেছেন। রত্না এসময় ডিপজলকে নিয়ে তার স্মৃতিও বর্ণণ করেন।

রত্না লিখেছেন, \’ডিপজল মামা আমার খুব পছন্দের মানুষ। সম্ভবত ২০১০ এ তার প্রযোজিত \’কাজের মানুষ\’ চলচিত্রে অভিনয়ের সময় তার সাথে আমার প্রথম পরিচয়। আমি চলচিত্রে যখন আসি তখন থেকেই তার ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব আসতে থাকে, কিন্তু খুব ভয় হতো তাকে, তার সামনে ও যেতাম না কখনও।\’

ডিপজল সম্বন্ধে তার এই ধারণার পরিবর্তনের শুরু ২০০৯ সালে। তিনি স্মৃতিচারণা করে লিখেন,

\’২০০৯ সালে চিএনায়িকা মুনমুন আপু বললেন চল ডিপজল ভাইয়ের ওখানে যাই। আমাকে আপু বললো গোটা চলচিত্রে একজন ভালো মানুষ থাকলে তিনি। আর মুনমুন আপু কিছু বললে আমার কাছে ওটার গ্রহণযোগ্যতা অনেক। গেলাম। ধারণা বা চিন্তার বিপরীত এক অন্য মহা মানবকে দেখলাম\’

তিনি আরো বলেন, \’বাংলার কিছু মানুষের ডিপজল সম্পর্কে যে ধারণা, তা পাল্টে গেল নিমিষে। লাখো মানুষের ভরসা স্থল এই ডিপজল- তার ওপর আমিও ভরসা করতে লাগলাম। অর্থের ভরসা নয়। মানসিক শান্তির ভরসা। ২০০৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত ফুলবাড়িয়াতে আসা যাওয়া জীবনের প্রতিটা দিন মনে হতো ঈদ। অনেক মানুষের সমাগম মামার আশেপাশে।\’

স্মৃতিচারণার এক পর্যায়ে তিনি আরো বলেন, আমার তখন স্নাতক পরীক্ষা, হঠাৎ বড় একটি গ্যাপ। তারপর একটি ছবির কাজে ফুলবাড়িয়া যাই গিয়ে দেখি খুব স্তব্ধ। থমকে যাই। মামাকে বার বার ফোন করি, একবার ধরে। আমি পরিচয় দিলে বলে, বেয়াদব আয় উপরে। আমাকে উনি আদর করে বেয়াদব বলে ডাকেন। আমি গেলাম নিচ থেকে তার তিন তলা পর্যন্ত খাঁচায় বন্দী নানা জাতের পশু পাখি। আমি উনাকে বললাম একি অবস্হা মামা এসব কি? উত্তরে বললেন আমার বন্ধু। ওদের আমি ছেড়ে দিলে তবেই যাবে অন্যথায় বেঈমানি করবে না। আর মানুষ বেঈমান। ছেড়ে চলে যায়!

শেষ দিকে তিনি লিখেন- কথাটার তাৎপর্য অনেক। আমি উত্তরে বললাম তাই বলে এভাবে সবাই কে দূরে ঠেলে দেবেন? উনি বললেন যার প্রয়োজন হয় দেখা করে যায় আমি না করিনা। আজ বলতে চাই মামা বাংলা চলচিত্রের পর্দায় তথা মানুষের ব্যক্তিগত জীবনে আপনার প্রয়োজনের অপরিহার্যতা অনস্বীকার্য। সুস্হ্য সবল হয়ে ফিরে আসুন আবার। শক্ত হাতে বাংলার হাল ধরুন। আমরা আপনার অপেক্ষায়। সবাই দোয়া করবেন উনার সুস্হ্যতার জন্য।

ডিপজলের অসুস্থতায় এফডিসির কুশীলবদের অনেকেই দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় আজ চিত্রনায়িকা রত্না এই স্ট্যাটাসটি লিখেছেন।

About Nusraat

Check Also

‘আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না’, নীলা চৌধুরীকে শাবনূর

চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৪ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *